তর্কবাগীশ সাহিত্য সম্মাননা পেলেন লায়ন গনি মিয়া বাবুল

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ৪, ২০২১
  • 68 পড়া হয়েছে
তর্কবাগীশ সাহিত্য সম্মাননা পেলেন লায়ন গনি মিয়া বাবুল
বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল সহিত্য ও গবেষণার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখায় ‘মাওলানা আবদুর রশীদ তর্কবাগীশ সাহিত্য সম্মাননা-২০২১ এ ভূষিত হয়েছেন। তর্কবাগীশ সাহিত্য পরিষদের উদ্যোগে ২  ফেব্রুয়ারি বিকেলে ঢাকার পুরানা পল্টনস্থ ইকোনমিক রিপোর্টার্স মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে এই সম্মাননা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, সাবেক উপমন্ত্রী ও জাতীয় পার্টির (জেপি) অতিরিক্ত মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক সিদ্দিকী। অনুষ্ঠানে উদ্বোধক হিসেবে বক্তব্য রাখেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এডভোকেট শামছুল আলম দুদু এমপি।
তর্কবাগীশ সাহিত্য পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ড. হাবিবুর রহমান খান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল। তর্কবাগীশ সাহিত্য পরিষদের উপদেষ্টা মোঃ আতাউল্লাহ খান ও সাধারণ সম্পাদক কাউসার হোসেন সুইট এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সাবেক সচিব ড. মুহাম্মদ জকরিয়া, বাংলাদেশ পুলিশের সাবেক ডিআইজি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আনোয়ার হোসেন. রাজনীতিবিদ ও নারী নেত্রী মেহের নিগার শিউলী, বাংলাদেশ বীমা কল্যাণ সোসাইটির মহাসচিব প্রফেসর হারুন অর রশীদ, বাংলাদেশ গণ আজাদী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক এম আমিনুর রহমান ও টাটকা বাজারডটকম এর প্রতিষ্ঠাতা ইমরান হোসেন চৌধুরী ইমু।
উল্লেখ্য যে, লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন সাহিত্য-সাংস্কৃতিক সংগঠনের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে স্বীয় দায়িত্ব প্রশংসার সাথে পালন করে আসছেন। ছাত্র জীবন থেকে তিনি ছড়া, কবিতা, প্রবন্ধ লেখে ইত্যিমধ্যে যথেষ্ট খ্যাতি অর্জন করেছেন। লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল রচিত বা সম্পাদিত গ্রন্থসমূহ ঃ ছোটদের শিক্ষামূলক ছড়া ও গল্প, নিমন্ত্রণ, শুভ্রতা চলে গেছে নীড়ে, একটি কবিতা, ভালোবাসতে বাসতে, নীল জলে  প্রেম, একটি বক্তৃতার পংতিমালা, নবম শ্রেণীর কৃষি শিক্ষা সহায়ক বই, কিছু কথা, কৃষি ডিপ্লোমা ভর্তি সহায়ক বই ইত্যাদি।
ইতিমধ্যে তিনি মানবসেবায় বিশেষ অবদান রাখায় আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ‘মেলভিন জোন ফেলো-এমজেএফ’ উপাধিসহ শতাধিক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন। তিনি তার নিজ জন্মস্থান গাজীপুর জেলার শ্রীপুরে স্কুল, মসজিদ, মাদ্রাসা, শিশু ও গণশিক্ষা কেন্দ্র, পাঠাগার প্রভৃতি জনহিতকর প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠায় মূখ্য ভূমিকা পালন করে আসছেন। লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল ১৯৯১ সালে ৭ মার্চ সমমনাদের নিয়ে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ প্রতিষ্ঠা করেন।  তিনি বর্তমানে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি হিসেবে স্বীয় দায়িত্ব দক্ষতা ও প্রশংসার সাথে পালন করে আসছেন। বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ ও বিভিন্ন সামাজিক বিষয় নিয়ে তিনি জাতীয় সংবাদপত্রে নিয়মিত গবেষণাধর্মী প্রবন্ধ লেখে ইতিমধ্যে যথেষ্ট পরিচিতি লাভ করছেন। উক্ত সম্মাননা পদকে ভূষিত হওয়ায় বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *