শিরোনাম:
চাঁপাইনবাবগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায়  নিহত ১ দেশে ফিরলেন সাকিব-মোস্তাফিজ, সোনারগাঁও হোটেলে কোয়ারেন্টাইন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার ১০৫ কর্মকর্তার পদায়ন পাঁচ নায়িকা নিয়ে রাজু আলীমের ‘ভালোবাসার প্রজাপতি’ শিক্ষক নিয়োগে এনটিআরসিএর বিজ্ঞপ্তি স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে আজও ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা ২০২৫ সালের মধ্যে আরও ১০ হাজার কি.মি. নদী খনন করা হবে: প্রধানমন্ত্রী করোনাকালে টিকা নিয়ে বাণিজ্য গ্রহণযোগ্য নয় : জিএম কাদের ইহুদিদের টার্গেট করে বায়তুল মুকাদ্দাস নিয়ে কঠিন বার্তা খ্রিস্টান ধর্মযাজকের খুব শিগগিরই মুক্ত হবে বায়তুল মুকাদ্দাস: ইরানের প্রেসিডন্ট

জলবায়ুসংক্রান্ত প্রাকৃতিক দুর্যোগে বিশ্বজুড়ে ৪ লক্ষ মানুষের মৃত্যু, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার আহ্বান আইএফআরসির

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : বুধবার, নভেম্বর ১৮, ২০২০
  • 127 পড়া হয়েছে
জলবায়ুসংক্রান্ত প্রাকৃতিক দুর্যোগে বিশ্বজুড়ে ৪ লক্ষ মানুষের মৃত্যু, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার আহ্বান আইএফআরসির
  • গত দশকে আবহাওয়া ও জলবায়ুসংক্রান্ত প্রাকৃতিক দুর্যোগে বিশ্বজুড়ে ৪ লাখ ১০ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে
  • আগামী দশকে ৫০টি উন্নয়নশীল দেশে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বছরে পাঁচ হাজার কোটি ডলার ব্যয় করতে হবে।

জলবায়ু পরিবর্তন ঠেকাতে এখন পর্যন্ত হওয়া বিনিয়োগের বেশির ভাগই উন্নয়নশীল দেশে যায়নিকরোনা মহামারির প্রকোপের মধ্যেও থেমে নেই জলবায়ু পরিবর্তন। করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলার মতো সমান গুরুত্ব জলবায়ু পরিবর্তন ঠেকাতেও দেওয়া উচিত। ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব রেডক্রস অ্যান্ড রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিজের (আইএফআরসি) নতুন এক গবেষণা প্রতিবেদনে আজ মঙ্গলবার এসব কথা বলা হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, কোভিড-১৯-এর চেয়েও বড় হুমকি বৈশ্বিক উষ্ণতা।

এই প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি বলছে, ১৯৬০ সাল থেকে হওয়া বৈশ্বিক বিপর্যয়গুলোর ওপর গবেষণা প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে জেনেভাভিত্তিক সংস্থাটি। প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত মার্চে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কোভিড–১৯–কে বৈশ্বিক মহামারি ঘোষণার পর থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ১০০টি বৈশ্বিক বিপর্যয় ঘটেছে। এসবের অনেকগুলোই জলবায়ু–সম্পর্কিত। আর বিশ্বজুড়ে অন্তত পাঁচ কোটি মানুষ এসব বিপর্যয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

আইএফআরসির মহাসচিব জাগান শাপাগেইন এক ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘এখন করোনা মহামারি চলছে, এটি আমাদের সবার সামনে আছে। করোনা আমাদের পরিবার, বন্ধু, আত্মীয়দের আক্রান্ত করছে। আমরা এখন অনেক বড় সংকটের মুখোমুখি।’ একই সময় তিনি হুঁশিয়ার করে বলেন, আইএফআরসি আশঙ্কা করছে জলবায়ু পরিবর্তন বিশ্ব ও মানুষের জীবনে আরও দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ফেলবে।

এএফপি বলছে, সম্প্রতি কয়েকটি ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান করোনার টিকা তৈরিতে আশার কথা শোনাচ্ছে। শিগগিরই কোভিড-১৯ ঠেকাতে এগুলোর ব্যবহারও শুরু হতে পারে। জাগান শাপাগেইন হতাশা প্রকাশ করে বলেন, ‘দুর্ভাগ্যক্রমে জলবায়ু পরিবর্তনের কোনো টিকা নেই।’

আইএফআরসির প্রতিবেদন বলছে, শুধু গত বছরেই বিশ্বে ৩০৮টি প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঘটনা ঘটেছে। এসবের ৭৭ শতাংশই জলবায়ু ও আবহাওয়া সংক্রান্ত। এসব দুর্যোগে অন্তত ২৪ হাজার ৪০০ মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে।

বৈশ্বিক উষ্ণতার বিষয়ে সতর্ক করে ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব রেডক্রস অ্যান্ড রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিজের এই শীর্ষ কর্মকর্তা আরও বলেন, সত্যিকার অর্থেই এই বিশ্বে মানুষের জীবন রক্ষা করতে হলে অনেক বেশি স্থায়ী পদক্ষেপ ও বিনিয়োগ করতে হবে।

আইএফআরসির প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ১৯৬০ সাল থেকে আবহাওয়া ও জলবায়ুসংক্রান্ত দুর্যোগের ঘটনা নিয়মিত হারে বাড়ছে। গত দশকে আবহাওয়া ও জলবায়ুসংক্রান্ত প্রাকৃতিক দুর্যোগে বিশ্বজুড়ে ৪ লাখ ১০ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে, যাদের বেশির ভাগই দরিদ্র দেশের বাসিন্দা ছিলেন। প্রতিবেদন বলছে, প্রচণ্ড দাবদাহ ও ঘূর্ণিঝড় সবচেয়ে বেশি প্রাণঘাতী।

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আরও গুরুত্ব দিয়ে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার আহ্বান জানিয়ে আইএফআরসি বলেছে, ‘সবচেয়ে বেশি ঝুঁকির মধ্যে থাকাদের রক্ষা করুন।’ সংস্থাটির হিসাব অনুযায়ী, আগামী দশকে ৫০টি উন্নয়নশীল দেশে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বছরে পাঁচ হাজার কোটি ডলার ব্যয় করতে হবে। কোভিড-১৯ মোকাবিলার কারণে বিশ্ব অর্থনীতিতে যে প্রভাব পড়েছে, তার তুলনায় এই ব্যয় খুবই সামান্য। ইতিমধ্যে করোনার কারণে বিশ্ব অর্থনীতিতে ১০ ট্রিলিয়ন ডলারের ধাক্কা লেগেছে। জলবায়ু পরিবর্তন ঠেকাতে এখন পর্যন্ত হওয়া বিনিয়োগের বেশির ভাগই উন্নয়নশীল দেশে যায়নি। অথচ তারাই সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে আছে।

জাগান শাপাগেইন বলেন, ‘আমাদের প্রথম কাজ হচ্ছে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা সম্প্রদায়কে রক্ষা করা। আমাদের গবেষণা বলছে, সম্মিলিতভাবে এই কাজ করতে আমরা ব্যর্থ।’

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *