এফআর টাওয়ার আগুন : রাজউকের সাবেক প্রধান প্রকৌশলীর জামিন

রাজধানীর এফ আর টাওয়ারের নকশা জালিয়াতির মামলায় রাজউকের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইদুর রহমানকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ বিষয়ে জারি করা রুল নিষ্পত্তি করে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ আজ বুধবার এ আদেশ দেন।

এ জামিন আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী।

গত ৩ ডিসেম্বর এফ আর টাওয়ার মামলায় রাজউকের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইদুর রহমানকে কেন জামিন দেয়া হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট। এই রুল যথাযথ ঘোষণা করে তাকে আজ জামিন দেয়া হলো। আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. খুরশিদ আলম খান, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক। আসামি পক্ষে শুনানি করেন মো. কামরুল ইসলাম।

ডেপুটি এটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক বাসস’কে বলেন, গত ৩ ডিসেম্বর রুল জারি করেছিলেন আদালত। আজ বুধবার রুল নিষ্পত্তি করে তাকে জামিন দিয়েছেন। তবে জামিন আদেশের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের করা হবে।

গত ২৫ নভেম্বর হাইকোর্ট থেকে বিচারিক আদালতে এক সপ্তাহের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশের পর গত ২৮ নভেম্বর মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করলে আদালত মো. সাইদুর রহমানের জামিন না-মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। এরপর হাইকোর্টে তিনি জামিন আবেদন করেন।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, আসামিরা অসৎ উদ্দেশ্যে অন্যায়ভাবে লাভবান হওয়ার অভিপ্রায়ে পরস্পর যোগসাজশে প্রতারণা, জালিয়াতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে ইমারত নির্মাণ বিধিমালা ১৯৯৬ এর বিধিবিধান লঙ্ঘন করে ৩২ কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ, বনানী, ঢাকায় ভবন নির্মাণে ১৫ তলার স্থলে ১৮ তলা ভবনের নকশা অনুমোদন ও ডেভিয়েশনসহ ১৮ তলা এফ আর টাওয়ার নির্মাণ করেন। এ অভিযোগে দুদকের উপ-পরিচালক মো. আবু বকর সিদ্দিক ৫ জনকে আসামি করে গত ২৫ জুন মামলা দায়ের করেন।

এফ আর টাওয়ার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ২৫ জনের মৃত্যু ঘটে ও ৭৩ জন মারাত্মক পঙ্গুত্ববরণ করেছিলেন। এ মামলার অন্য আসামিরা হলেন ইজারা গ্রহিতা সৈয়দ মো. হোসাইন ইমাম ফারুক, রূপায়ন হাউজিং এস্টেট লিমিটেডের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী খান মুকুল, সাবেক চেয়ারম্যান মো. হুমায়ুন খাদেম ও রাজউকের সাবেক অথরাইজড অফিসার সৈয়দ মকবুল আহমেদ।